আজ ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ ইং

টকশোতে বড় গলায় বলতেন, ‘কাউকে ছাড় দেয়া হবে না’

ডেক্স নিউজ : করোনার ভুয়া রিপোর্ট দেয়া রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় সাতক্ষীরার সীমান্ত এলাকা থেকে অবৈধ অস্ত্রসহ গ্রেফতার হয়েছেন। তাকে হেলিকপ্টার যোগে ঢাকায় এনে র‍্যাব সদর দফতরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বুধবার (১৫ জুলাই) ভোরে সাড়ে পাঁচটায় সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। টেলিভিশনের টকশোতে নিয়মত আলোচক ছিলেন এই প্রতারক সাহেদ করিম। দুর্নীতিতে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না বলে একটি টেলিভিশনের টকশোতে নিজেই জোড় গলায় বলেছিলেন। এখন দুর্নীতির দায়ে তিনিও ধরা খেলেন। করোনা টেস্টের ভুয়া রিপোর্ট প্রদান, অর্থ আত্মসাতসহ বিভিন্ন ধরনের প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে সাহদকে।

সাহেদ ওই টকশোতে বলছিলেন, এই যে আমি ঢাকায় ত্রিশ বছর ধরে আছি। আমি কোনোদিন ক্যাসিনোর কথা শুনি নাই। অথচ দেখেন এই শহরে কত ক্যাসিনো ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। সরকার অপরাধীকে ছাড় দেবে না বলে নিজের দলের ভেতর থেকে পরিচ্ছন্ন অভিযান শুরু করেছে। এই জিকে শামীমের কথাই ধরুন, সে কি ছাড় পেয়েছে?

টেলিভিশনের ওই টকশোতে দেয়া সাহেদের বক্তব্যের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশ ভাইরাল হয়েছে। অনেকেই তার ভিডিওটি নিজেদের ফেসবুকে শেয়ার করেছেন। বইছে সমালোচনার ঝড়। গত ৬ জুলাই করোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে র‍্যাব উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায়। এরপর রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয়া হয়। ৭ জুলাই করোনা পরীক্ষা না করেই সার্টিফিকেট প্রদানসহ বিভিন্ন অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করে র‌্যাব।

মামলায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিমকে প্রধান আসামি করে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয় এজাহারে। এরপর থেকেই পালিয়ে ছিলেন সাহেদ। তাকে গ্রেফতারে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় র‌্যাব। অবশেষে সাতক্ষীরা থেকে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...