আজ ২০শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা জুলাই, ২০২০ ইং

 গ্রামীণ রাস্তাগুলোর বেহাল দশা,বছরেও মেলেনি সংষ্কার ! ভোগান্তিতে জনগন

বিশেষ প্রতিনিধি:গত কয়েক সপ্তাহের টানা বর্ষনে এবং অবাধে পাওয়ার টিলার ও কাঁকড়া গাড়ি চলাচলের কারণে গাইবান্ধার কাঁচা রাস্তাগুলো খানা খন্দে ভরে গিয়ে বেহাল দশার সৃষ্টি হয়েছে ।

জেলার প্রত্যেকটি কাঁচা রাস্তার মাঝখানে গর্তে পানি জমে হাটু  কাঁদায় পরিণত হয়েছে। সে কারণে সকল প্রকার যাবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে। পায়ে হেঁটেও চলাচল করা যাচ্ছে না কাঁদা দেখে মনে হয় এ যেন নিত্ত দিনে সঙ্গী। জনসাধারণের ভোগান্তি যেনও পিছু ছাড়তে নারাজ।

গাইবান্ধা জেলার বিশেষ করে সদর উপজেলার লক্ষিপুর, মালিবাড়ী, গিদারী ইউনিয়ন ও সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গা, সোনারায়, শ্রীপুর, কাপাশিয়া ইউনিয়নে এলাকা ঘুরে ফিরে দেখা গেছে, কাঁচা রাস্তাগুলোর বেহাল দশা। বিশেষ করে মোটর সাইকেল, বাইসাইকেল, অটোভ্যান, রিক্সা, ঘোড়ার গাড়ি, অটোবাইক চলাচল অত্যন্ত দূর্বিষহ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের জনসাধারনের সাথে কথা বলে জানা যায়, রাস্তার অবস্থা খুব খারাপ হবার কারণে ভোগান্তিকে নিত্ত দিনের সঙ্গী করে নিয়েছেন।

বিশেষ করে এই বর্ষা মৌসুমে কাঁচারাস্তা গুলো চলাচলের অযোগ্য হয়ে পরেছে। দীর্ঘদিন থেকে সংস্কার ও মেরামত না করার কারণে অসংখ্য খানা-খন্দে পরিনত হয়েছে। বৃষ্টির পানি গর্তে জমে হাটু কাঁদায় পরিনত হয়েছে। বর্তমানে রাস্তা গুলো দিয়ে চলাচল করা অত্যন্ত দুষ্কর হয়ে পড়েছে। অনেকে হাট বাজার করতে পারছে না। কোন কোন পথচারী নিরুপায় হয়ে মালকাছা (নেংটি খিচে) জুতো হাতে নিয়ে চলাচল করছে। মনে হয় এ যেনও কোন চলাচলের রাস্তা নয়, আস্ত একটা ফসলি জমি। এসব দেখার যেন কেউ নেই। যার কারণে অনেকে রাস্তায় আমন ধানের চারা রোপন করেন।

জেলার গ্রাম-গঞ্জের প্রত্যেকটি এলাকার মানুষের প্রাণের দাবি এসব ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাবার জন্য সংশ্লিষ্ট মহলের হস্তক্ষেপ একান্ত কাম্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...