আজ ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জুন, ২০২৪ ইং

 ‘পুনাক বাণিজ্য মেলার টিকিট বিক্রীর নামে চলেছে ভদ্রবেশী জুয়া ’ সর্বশান্ত করা  হচ্ছে সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীদের

বিশেষ  প্রতিনিধি: -গাইবান্ধায় মাস ব্যাপী ‘পুনাক’ বাণিজ্য মেলার অন্তরালে  র‌্যাফেল-ড্রর নামে চলছে জমজমাট জুয়া ।

সচেতন মহলে প্রশ্ন, কাদের স্বার্থে এ বাণিজ্য মেলা, আর এর লক্ষ্য উদ্দেশ্যেই বা কি?

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাইবান্ধা পুলিশ লাইনে মাস ব্যাপী পুনাক ও জে.বি ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল এর আয়োজনে হস্ত ও কুঠির শিল্প পণ্য মাস ব্যাপী বাণিজ্য মেলার কথা থাকলেও মুলত এর অন্তরালে চালানো হচ্ছে জমজমাট ভাবে র‌্যাফেল-ড্র।

সকল প্রকার স্বাস্থ্য বিধি মানার কথা থাকলেও এর কোন বালাই নেই। কোভিড-১৯ ও ওমিক্রন মোকাবেলায় গোটা দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা যখন বিপর্যস্ত। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্য নিয়ে সাধারণ জনগণ যখন নাভিশ্বাস ঠিক এমনি মুহুর্তে এ বাণিজ্য মেলা কতটা গ্রহণ যোগ্য তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মেলা চলায় স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে শংকিত থাকেন অভিভাবকরা। অন্য দিকে মেলার খরচ যোগান দিতে না পারায় হিমসিম খাচ্ছেন তারা।

এ বাণিজ্য মেলায় প্রবেশ মূল্য ২০ টাকা হলেও বাচ্চাদের চর্কি বা দোলনায় উঠানো বাবদ টিকিটের মূল্য ৩০ টাকা, ট্রেনে ওঠা বাবদ টিকিটের মূল্য ১০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া হস্ত ও কুঠির শিল্পসহ হরেক রকমের দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অতিরিক্ত মূল্য নির্ধারণে ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে হিমসিম খাচ্ছেন ক্রেতারা। অন্যদিকে, মোটর সাইকেল ও অটোরিক্সা সহ বিভিন্ন প্রকার পুরস্কারের লোভ দেখিয়ে প্রতিদিন ২০ টাকা মূল্যের টিকিট বিক্রি করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

র‌্যাফেল-ড্র ও বাণিজ্য মেলার লক্ষ্য উদ্দেশ্যে সম্পর্কে জে.বি ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের পক্ষে বাদশা মিয়াকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি এর জবাব দিতে অনিহা প্রকাশ করেন। বিষয়টি জনস্বার্থে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় খতিয়ে দেখবেন এটাই বিজ্ঞ মহলের প্রত্যাশা। সেই সাথে গাইবান্ধা জেলায় দীর্ঘদিন থেকে বন্ধ থাকা জুয়া যাত্রা আনায়নের আগমনি বার্তা কি বহন করছে এই বানিজ্য মেলা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...