আজ ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৩০শে মে, ২০২৪ ইং

শাহজাদপুরে ৩ দিনে ৪ লাশ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুরে গত ৩ দিনে পৃথক ৩ স্থানে সংঘর্ষের ঘটনায় ৩ জন নিহত ও অপর ১ অজ্ঞাত মহিলার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। পৃথক এসব সংঘর্ষের ঘটনায় কমপক্ষে অর্ধশতাধিক এলাকাবাসী আহত হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, গত মঙ্গলবার বিকেলে আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব বিরোধের জের ধরে উপজেলার কৈজুরী ইউনিয়নের গুদিবাড়ী গ্রামে বাহারাম গ্রুপ ও সামসাদ গ্রুপের মধ্যে ভয়াবহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২ জন নিহত ও কমপক্ষে ২২ জন আহত হয়েছে। নিহতরা হল, বাহারাম গ্রুপের সমর্থক আব্দুল মান্নানের ছেলে শ্যালো মেশিন মেকার রিপন (৩০) ও সামসাদ গ্রুপের আনসার আলীর ছেলে ১০ম শ্রেণির ছাত্র আশরাফুল (১৫)। আহতরা হলেন, মণিরুল (৪), বাহারাম (৪৫), গাজী (৪০), হবিবর (৫০), দায়েন (৩৫), সামসাদ(৬০), আক্তার (৪৫), ইউসুফ (২০), আনসার (৬০), আব্বাস (৫৫) ও জাহিদুল (১৮) । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। এদিকে, গত মঙ্গলবার সন্ধায় উপজেলার পোতাজিয়া ইউনিয়নের ভাইমারা গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গহের গ্রুপ ও আমানত গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে।

এদের মধ্যে ফালাবিদ্ধ নূর হোসেনকে উদ্ধার করে স্থানীয় পিপিডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নূর হোসেন ও শহীদ মোল্লার অবস্থা শংকাজনক বলে জানা গেছে। অন্যান্য আহতরা হলেন, নূর মোহাম্মদ (৩৮), আব্দুল আলীম (৩৫), আনোয়ার (২৮), কোবাদ (৫৩)।

অপরদিকে, ঈদের দিন সোমবার বিকালে উপজেলার কৈজুরি ইউনিয়নের ভাটপাড়া গুদারাঘাটের পাশের যমুনা নদীতে বাঁশের সঙ্গে আটকে থাকা অজ্ঞাত এক নারীর (২৫) অর্ধগলিত ভাসমান লাশ উদ্ধার করেছে শাহজাদপুর থানা পুলিশ। ওই নারীর পরনে ধুসরের ওপর কালো ছোট প্রিন্টের জামা, মেজেন্টা রংয়ের পাজামা ও চুলের সঙ্গে গোলাপী রংয়ের রাবার ব্যান্ড ছিল বলে জানা গেছে। সর্বশেষ, গত রোবাবার উপজেলার নরিনা ইউনিয়নের কাংলাকান্দি গ্রামে পূর্ব বিরোধ ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রউফ গ্রুপ ও নজরুল মাস্টার গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে নাজিম উদ্দিন (৬০) নামের ১ বৃদ্ধ নিহত হয়েছে বলে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী উঠেছে। অপরদিকে, রউফ গ্রুপের দাবী, ‘বৃদ্ধ নাজিম স্ট্রোক করে মারা গেলেও নজরুল মাস্টারের লোকজনেরা তাদের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে মহিলাসহ ৫ জনকে আহত করে। এরা হলেন, ফাতেমা (৩৫), আমেনা (৪০), নূরজাহান (৭৫)। এ সময় রউফ, রায়হান, এলাহী, হান্নান, সিকিম, সাইদুল, রহিমের বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান বলেন, এলাকায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে, শাহজাদপুরে গত ৩ দিনে ৪টি লাশ উদ্ধার, হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় চরম উদ্বেগ আর উৎকন্ঠা প্রকাশ করে এলাকার সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে প্রশাসনের উর্ধতন কর্তিপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সচেতনমহলসহ এলাকাবাসী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...