আজ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডাঃ এম আমজাদ হোসেন রংপুর বিভাগ সমিতি ঢাকা’র মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মনোনীত

বিশেষ প্রতিনিধি: দিনাজপুর জেলার কৃতি সন্তান, সমাজসেবায় বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মাননা স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত, দেশবরেণ্য অর্থোপেডিক সার্জন, ল্যাবএইড স্পেশালইজড হাসপাতাল, ঢাকার অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের চিফ কনসালট্যান্ট ও ট্রমা সার্জন বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডাঃ এম আমজাদ হোসেন রংপুর বিভাগ সমিতি, ঢাকা’র কার্যনির্বাহী কমিটির মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক এর শূন্য পদে মনোনীত হয়েছেন

গত সোমবার সমিতির সন্মানিত সভাপতি ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সচিব মোঃ নূরুল ইসলাম পিএইচডি ও সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের পুলিশ কমিশনার মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক এর পক্ষ থেকে প্রতিনিধি হিসেবে সমিতির আইসিটি বিষয়ক সম্পাদক বরদা ভূষণ রায় লিটন ও সমিতির সহ দপ্তর সম্পাদক মোঃ হাবিল রানা তাঁর নিকট শুভেচ্ছা বার্তার চিঠি হস্তান্তর করেন।

উল্লেখ্য যে গত ০১ জুন ২০২২ বাংলামটর ঢাকায় অনুষ্ঠিত রংপুর বিভাগ সমিতি ঢাকা’র কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সর্বসম্মতিক্রমে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক এর শূণ্যপদে তাঁকে মনোনিত করা হয় ।‌

বর্তমানে তিনি ল্যাবএইড হাসপাতালের অর্থোপেডিক ও আর্থোপ্লাস্টি সেন্টারের চিফ কনসালট্যান্ট ও বিভাগীয় প্রধান । আন্তর্জাতিক অর্থোপেডিক সংস্থার ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবেও দায়িত্ব পালন করছেন । এছাড়াও তিনি সার্কভুক্ত ৮ টি দেশের অর্থোপেডিক সার্জনদের সংগঠন অর্থোপেডিক অ্যাসোসিয়েশন অব সার্ক কান্ট্রিজের সভাপতি হিসেবেও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন । অর্থোপেডিক সার্জন অধ্যাপক ডা . এম আমজাদ হোসেন একজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা । স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় উরুতে গুলিবিদ্ধ হলে ভারতের সামরিক হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন ছিলেন । পরবর্তীকালে বঙ্গবন্ধুর আমন্ত্রণে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা দিতে দেশে আসা আন্তর্জাতিক বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জন ডা . আর জে গাস্টের অধীনে অর্থোপেডিক চিকিৎসা শুরু করেন । তার নেতৃত্বে দেশে কোমর ও হাঁটু প্রতিস্থাপন ( হিপ অ্যান্ড নি রিপ্লেসমেন্ট ) সার্জারিতে এসেছে বৈপ্লবিক সাফল্য । আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে এ পর্যন্ত সাড়ে ৩ হাজারেরও বেশি এ ধরনের সার্জারি সম্পন্ন করেছেন এ চিকিৎসক । দিনাজপুরের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন ও সমাজসেবা মূলক কাজ করার জন্য তিনি এবি ফাউন্ডেশন নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন । এছাড়াও দিনাজপুর শিক্ষা বোডের অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আমেনা – বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ডাঃ এম আমজাদ হোসেন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...