আজ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

পুলিশের গুলিতে নিহত ছাত্রদল নেতার পরিবারকে বাড়ি উপহার

লালমনিরহাট প্রতিনিধি: রক্তের বদলা বাড়ি দিয়ে পরিশোধ করার নয়। দেশকে ভালবেসে গণতন্ত্রকে উদ্ধার করতে নাসির, মোবারক, ফারুক রক্ত দিয়েছে, নিজের জীবনকে উৎসর্গ করেছে। তাদের রক্তের ঋণ শোধ হবে না।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও লালমনিরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু নাসিরের পরিবারকে বাড়ি হস্তান্তর করার সময় এসব কথা বলেন।

বুধবার (১৭মে) লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার সোহাগপুরে পুলিশের গুলিতে নিহত নাসিরের পরিবারকে বাড়ি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এসময় ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব তারেক রহমান উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু আরও বলেন, গণতন্ত্রের যোদ্ধা, দেশকে ভালবেসে প্রাণ দিয়েছে নাসির। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হলে নাসিরসহ শহীদদের আত্মা শান্তি পাবে।

তিনি আরও বলেন,বিবিসিকে এক সাক্ষাৎকারের শেখ হাসিনা বলেছেন আমেরিকা আর আমাদের ক্ষমতায় রাখবেন না। আমেরিকা তাকে ক্ষমতায় রাখারকে? স্বৈরাচারী সরকার শেখ হাসিনাকে বাংলাদেশের জনগণেই তাকে ক্ষমতায় রাখবেনা।

তিনি বলেন,শেখ হাসিনার রক্তের পিপাসা মেটেনি আমরা রক্ত দেয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছি। শেখ হাসিনার পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরবো না। বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ঘোষিত ১০ দফা দাবির মধ্যে নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠিত না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরে যাব না।

এ সময় কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও লালমনিরহাট-১ (পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা) আসেনর বিএনপির এমপি প্রার্থী ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান বলেন, শান্তিপূর্ণ অবরোধ কর্মসূচিতে পুলিশ অতি উৎসাহী হয়ে গুলিচালায়। সেই গুলিতে নাসিরের মৃত্যু হয়। নাসিরের রক্ত বৃথা যেতে দিব না। নাসিরের পরিবারের জন্য একটি পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে। তাদের সবসময় খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৪ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে পাটগ্রাম উপজেলার ধরলা সেতুর পূর্ব প্রান্ত থেকে হরতাল সমর্থকরা একটি মিছিল নিয়ে পাটগ্রাম শহরে আসার সময় পুলিশ বাধা দিলে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড গুলি ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। এতে পাটগ্রাম ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক নাসির গুলিবিদ্ধ হন। তাকে সঙ্গে সঙ্গে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে সে মারা যান।

দীর্ঘ এক দশক পর বিএনপির দেয়া বাড়ি পেয়ে নিহত ছাত্রদল নেতার মা নাসিমা বেগম বলেন, ‘ আমরা ৬ সদস্যের পরিবার। থাকার মতো ঘর প্রয়োজন ছিল। আজ আমাদের বাড়ি করে দেয়ায় আমরা বিএনপি নেতাদের উপকারের কথা কোন দিনই ভুলবো না।

নাসিরের ছোট ভাই নাজিম হোসেন বলেন, নাসির ভাই গুলিতে নিহতের পর পরই দুলু ভাই (সাবেক উপমন্ত্রী) আমাদের বাড়িতে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছেন। ব্যারিস্টার আংকেল (বিএনপি নেতা হাসান রাজীব প্রধান) আমাদের একটা মুদি দোকান করে দেয়। সেটাই আমাদের আয়ের একমাত্র উৎস। এছাড়া আমার ছোটো বোনের পড়াশোনার খরচ দেন তিনি। এবার পাটগ্রামের বিএনপি নেতারা সবাই মিলে আমাদের বাড়ি করে দেয়ায় আমরা সবার কাছে কৃতজ্ঞ।

নাসিরের ভাইয়ের ভাষা অনুযায়ী, প্রায় ১৫ লাখ টাকায় টিন শেঠের ওই পাকা বাড়িতে তিনটি বেড রুম, দুইটা টয়লেট, একটি করে ডাইনিং ও কিচেন রুম আছে।

প্রায় এক দশক আগে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোটের ঢাকা হরতালে পুলিশের গুলিতে নিহত হন ছাত্রদল নেতা নাসির উদ্দিন। এরপর বিএনপির পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতার পাশাপাশি মুদির দোকানের ব্যবস্থা করে দেয়া হয়। সেই আয় দিয়ে কোন রকমে চলছিল লালমনিরহাটের পাটগ্রাম পৌরসভার সোহাগপুর এলাকার নিহত নাসিরের অসহায় পরিবার। এবার পুলিশের গুলিতে নিহত ছাত্রদল নেতার পরিবারকে নতুন বাড়ি তৈরি করে দিলেন বিএনপি নেতারা।

এসময় নিহত নাসিরের বাড়িতে উপস্থিত ছিলেন, রংপুর বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেক, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও লালমনিরহাট-১ (পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা) আসনের বিএনপির এমপি প্রার্থী ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধানসহ জেলা উপজেলা এবং পৌর বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...