আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২১ ইং

আশুলিয়ায় যুবলীগের দুই গ্রুপের মারামারি আহত ৭, গ্রেফতার ১

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সাভারের আশুলিয়ায় কাউয়া ও হাইব্রিডমুক্ত যুবলীগ চাই লেখা সম্বলীত ফেষ্টুন অপসারনকে কেন্দ্র করে যুবলীগের দুই গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষের অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় আশুলিয়ায় বেরন এলাকার ছয়তলা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার উজ্জল ভুঁইয়া আশুলিয়ার বেরন এলাকার ঝড়ু ভুঁইয়ার ছেলে।

এর আগে শুক্রবার (৮ নভেম্বর) রাত তিনটার দিকে আশুলিয়ার বেরন এলাকার ক্রিয়েশন গার্মেন্টস এর সামনে এ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বর্তমান যুবলীগকর্মীর স্ত্রী চায়না বেগম বাদি হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

অভিযুক্তরা হলেন, রুবেল আহম্মেদ ভূইয়া (৩৮), জামগড়া ভূইয়াপাড়া এলাকার ঝড়ু ভূইয়ার ছেলে উজ্জল ভূইয়া (৩৫), জসিম উদ্দিনের ছেলে নাজমুল হক ইমু (২২), জালাল মোল্লার ছেলে ময়না মোল্লা (৩৫), মোঃ সম্রাট (৩০), তমিজ মীরের ছেলে সুমন মীরসহ (২৮) অজ্ঞাতনামা আরও ৭-৮জন।

জানা যায়, বিএনপি থেকে আওয়ামী যুবলীগে সদ্য অনুপ্রবেশকারী কবির হোসেন সরকার থানা যুবলীগের আহ্বায়ক মনোনীত হওয়ার পর থেকেই দখলদারিত্বের রাজত্ব কায়েম করার চেষ্টা করছে। বিভিন্ন পোশাক কারখানার ঝুট ব্যবসা দখল, নিরীহ মানুষের ওপর হামলা, জমি দখল, ব্যবসায়ীর পা ভেঙ্গে দেওয়াসহ কয়েক মামলার আসামী তিনি। বিভিন্ন ধরনের অরাজকতা সৃষ্টির প্রতিবাদ স্বরুপ আশুলিয়া থানার বিভিন্ন সড়ক ও মোড়ে ‘কাউয়া হাইব্রিড মুক্ত যুবলীগ চাই’ ব্যানার টানিয়ে দেন সাবেক যুবলীগ। এসব ব্যানার ও ফেষ্টুন বর্তমান যুবলীগের চোখে পড়লে রাতের আঁধারে চুরি করে প্রায় ১ হাজার ব্যানার অপসারন করে। খবর পেয়ে সাবেক যুবলীগ কর্মীরা ঘটনাস্থলে গেলে তাদের ধাওয়া করে তারা। এসময় দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ৭ জন আহত হয়। পরে আহদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়। পরে বর্তমান যুবলীগকর্মীর স্ত্রী চায়না বেগম বাদি হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

জানতে চাইলে মামলার ১ নম্বর আসামী রুবেল ভুঁইয়া জানান, আমি বিজিএমইএর সদস্য ও পোশাক কারখানার মালিক। রাত তিনটার সময় বাড়ি থেকে বের হয়ে ২ কিলোমিটার দুরে গিয়ে সংঘর্ষের প্রশ্নই আসে না। হেয় করার উদ্দেশ্য ষড়যন্ত্রমুলক আমাকে মামলায় ফাসানো হয়েছে যার তীব্র নিন্দা জানাই।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শফিকুল ইসলাম সুমন বলেন, যুবলীগ কর্মীদের মারধরের ঘটনায় সকালে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার ভিত্তিতে উজ্জল ভূইয়া নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এঘটনায় আহতদেরকে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে এবং মামলার অভিযুক্ত বাকি আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...