আজ ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

সরকারীভাবে ধান ক্রয় নিয়ে চলছে নাটকীয়তা

 

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলায় চলতি আমন মৌসুমে ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা ১৫১২ টন। ধান ক্রয়ের উদ্বোধনী দিনেই পলাশবাড়ী উপজেলা খাদ্য গুদামে ঘটে অনাকাংঙ্খিত একটি ঘটনা ঘটে। সর্বসাধারণের দাবী ছিলো স্ব স্ব ইউনিয়নে ধান ক্রয় কেন্দ্র খোলার। কিন্তু সেই দাবীকে গুরুত্্ব না দিয়ে    বিশেষ চক্রের নির্দেশে উপজেলা প্রশাসন ও খাদ্য বিভাগের আয়োজনে আবারো সেই কৃষকদের মাঝে লোক দেখানো লটারি করা হয়  গত ২৭ নভেম্বর বুধবার সদর ইউনিয়নের কৃষকদের নিয়ে এই লটারি উপজেলা টাউন হল রুমে বিকাল ৩ টা হতে শুরু হয়ে চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত। এই লটারি উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেজবাউল হোসেন।

এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, কৃষি অফিসার, খাদ্য কর্মকর্তা,মিলমালিক সমিতির সভাপতি ও সম্পাদক ছাড়াও মিল ও চাতাল মালিকগণ সহ উপজেলার সাংবাদিকদের একটি অংশ। গত দুইদিন হলো এ সংক্রান্ত বিষয়ে মাইকিং করা হলে তবে লটারি চলাকালিন সদর ইউনিয়নের কৃষকদের দেখা যায়নি।

 চক্রের চাহিদা মোতাবেক এ লটারি কার্যক্রম পরিচালনায় শেষ সময়ে সাবেক সদর ইউনিয়নের ও পৌর এলাকার কয়েক সাধারণ কৃষক তাদের নিজ নিজ তালিকা দেখতে চায়। এসময় লটারি কাজের তদারকিকারি কৃষি কর্মকর্তারা কৃষকদের তালিকা দেখাতে ব্যর্থ হলে লেগে যায় বাকবিদ্বন্দের ফলে লটারি অসমাপ্ত রয়ে যায় সাধারণ কৃষকদের তোপের মুখে। পরে লটারি পরিচালনাকারি কর্মকর্তারা লটারি কার্যক্রম সমাপ্ত করে যায় সংশ্লিষ্টরা।
জানা যায় প্রথম দিনে লটারির বিজয়ীদের তালিকা সংক্রান্ত কাগজ ছিনিয়ে নেয় কে বা কারা।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেজবাউল হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ঘটনার সময় আমি ছিলাম না ঘটনাটি জেনে পরর্বতীতে জানানো হবে।
উল্লেখ্য, সরকারিভাবে ধান ক্রয়ে উপজেলার ধান আবাদি কৃষকদের দাবী উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে সরকারি ভাবে ধান কেন্দ্র খুলে সরাসরি কৃষকদের নিকট হতে ধান ক্রয় করা হোক । এতে করে সরকারের ঘোষিত সুফল প্রতিটি কৃষক ভোগ করতে পারবে। এতে করে বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি আরো উজ্জল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...