আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং

৬ ঘন্টার ব্যবধানে চালের দাম বস্তা প্রতি বেড়েছে ২শ থেকে ৫শ টাকা 

 নিজস্ব প্রতিবেদক:  কারো পৌষ মাস, কারো সর্বনাশ এমন ঘটনা ঘটেছে গাইবান্ধায় । সরকার  যখন দেশের করোনা ভাইরাস মোকাবেলা নিয়ে ব্যস্ত । ঠিক তখনি  গাইবান্ধায়  হঠাৎ   বেড়েছে চালের দাম  । গতকাল  দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ৬ ঘন্টায় (৫০ কেজি) চালের বস্তায় বেড়েছে ২শ টাকা থেকে ৫শ টাকা । রাত ৮ টার পরে আর টাকা দিয়েও মিলছেনা চালের বস্তা  ।  সাধারণ মানুষের অভিযোগ সকালের থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ৬ ঘন্টায় বস্তা প্রতি বেড়েছে ৪শ থেকে ৫ শ টাকা  । তবে  প্রশাসন জানালেন ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা ।

সরেজমিনে সাঘাটা উপজেলার বোনারপাড়া বাজারের দেখা যায়  সাধারণ মানুষ চাল কিনতে গিয়ে বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে ।  বস্তা প্রতি চালের দাম বেড়েছে ২০০ থেকে ৫০০ টাকা । সাধারণ ক্রেতারা এমন অভিযোগ করলেও খুচরা  ব্যবসায়ীরা বলছেন বেশি দামে কিনতে হচ্ছে বলেই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে । তাদের অভিযোগ পাইকাররা চালের দাম বেশী নিচ্ছেন বলে তারা বেশী দামে বিক্রি করছে ।

করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ায় চালগুলো মজুদ রাখা হচ্ছে কারন যদি দেশের সংকট দেখা দেয় তখন বেশী দামে চাল বিক্রি করা হবে ।

বোনারপাড়া বাজারের কাঠ ব্যবসায়ী মতিয়ার রহমান জানান, সকালে (৫০ কেজি) চালের  বস্তার দাম ছিল ১৬৩০ টাকা সন্ধ্যায় সেই চাল ২০০০ টাকায় কিনতে হচ্ছে ।   টাকা তেও মিলছে বিআর-২৮ ও গাঞ্জিয়া ধানের চাল । করোনা ভাইরাস নিয়ে দেশের মানুষ ভয়ে আছে বলেই । চাল ব্যবস্যায়ীরা সিন্ডিকেট করে এই চালের দাম বেড়ে দিয়েছে ।

 স্কুল শিক্ষক তৌহিদুল  ইসলাম জানান,  চালের বাজারে এসে মাথা ঘুরে যাচ্ছে।  হঠাৎ চালের দাম বৃদ্ধিতে আমাদের পরিবার সমস্যায় পরবে । কারন আমরা তো সব সময় কিনে খেতে হয় । করোনা ভাইরাসে মানুষের পাশে দাড়ানো তো দুরের কথা উল্টা চাল ব্যবস্যায়ীরা সিন্ডেকেট করেছে ।  এভাবে যদি চালের দাম বাড়তে থাকে তাহলে মানুষদের অনাহারে দিন কাটাতে হবে ।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সোনাইডাঙ্গা গ্রামের আব্দুল কাদের জানান,  চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় অনেক বিপাকে পড়তে হচ্ছে । সারাদিন দিনমজুর হিসেবে যা টাকা ইনকাম হয়, তা দিয়ে সংসার চালানো অনেক কষ্টকর । তারপরও যদি এভাবে চালের দাম বাড়তে থাকে, তাহলে আগামীতে জীবন ধারণ করা অনেক কষ্ট করা হবে ।  সরকার যদি দ্রুত সময়ে ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তারা আগামীতে আমাদের মত দিনমজুরদের ভাগ্যে দুর্দশা নেমে আসবে ।  দেখা  যাবে কোরনা ভাইরাসে  নয় বরং না খেয়ে মরতে হবে ।

সদর উপজেলার বাদিয়াখালী এলাকার  যুবক আব্দুল বাকি জানান, হঠাৎ চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় নিম্নআয়ের মানুষ বিপদে পড়েছে । ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে যদি চালের বাজার নিয়ন্ত্রণ করা না যায়, তাহলে ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে সাধারন মানুষদের কে বিপদে ফেলবে ।  তাই সরকারকে চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া জরুরী ।

দামবাড়ানোর বিষয়ে বোনারপাড়া বাজারের  খুচরা চাল ব্যবসায়ী নুরুজ্জামান জানান, চালের আরত থেকে চাল বেশি দামে কিনতে হয়েছে সেজন্য চাল বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে । আমরা যদি কম দামে চাল কিনতাম তাহলে কম দামে বিক্রি করতাম ।  আরেক ব্যবসায়ী ইউসুফ আলী জানান, বড় বড় চালের ব্যবস্যায়ীরা  দোকান বন্ধ রাখার ফলে দুপুর থেকে বিকাল এর মধ্যেই চালের বস্তা প্রতি ১০০ থেকে ৪০০ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে  ।

বিষয়ে সাঘাটা উপজেলা নির্বাহি অফিসার মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি জানান চালের বাজার নিয়ে ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট করার কোনো সুযোগ নেই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।  কেউ যদি চাল মজুদ রাখার চেষ্টা করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...