আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২২ ইং

মাছ চাষ করে সফল হলেন সোহেল

 

 চাঁদপুর  প্রতিনিধি: অর্থনীতিতে অনার্স মাস্টার্স শেষ করে চাকরির পেছনে দৌড়াননি । নিজের মেধাকে কাজে লাগিয়ে মাছ চাষ করে নিজের ভাগ্য গড়েছেন চাঁদপুরের সোহেল ব্যাপারী । বর্তমানে মাছ চাষে সফল এই ব্যবসায়কে কোটিপতি ব্যবসায়ী বলেও জানেন অনেকে । মাছ চাষ করে এমন সফল এই যুবকের উঠে আসার গল্প এখন সবার মুখে মুখে। জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের শাহ আলম বেপারীর ছেলে সোহেল বেপারী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিনে অর্থনীতিতে অনার্স মাস্টার্স শেষ করে গত তিন বছর আগে শুরু করেন মাছ চাষ । কেন চাকুরী না করে মাছ চাষের দিকে ঝুঁকলেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পড়া লেখা শেষ করে চিন্তা করলাম চাকুরী করবো না নিজে আত্ননির্ভরশীল হবো ? এক পর্যায়ে স্থির করলাম চাকুরী করার চেয়ে যদি নিজে কিছু করি তাতে আমার পাশাপাশি কিছু বেকার লোকেরও কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে । সেই ধারণা থেকেই আজ এই পর্যন্ত । তার সেই উদ্যোগ আজ সফল হয়েছে । ইতিমধ্যে একজন সফল মাছ চাষী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন তিনি । পাশা পাশি প্রায় ৩০ জন লোকের কর্মসংস্থানেরও ব্যবস্থা করেছেন । তাই আজ নিজেকে কিছুটা হলেও সফল ভাবছে তিনি ।
সোহেল বেপারী জানান, প্রথমে একটা পুকুর দিয়ে শুরু করলেও বর্তমানে তার ৮ টি মৎস্য প্রকল্প রয়েছে । সব মিলিয়ে তিনি প্রায় ৩৫ একর জলাশয়ের মধ্যে মাছ চাষ করছেন । মিশ্র জাতের মাছ চাষ করে তিনি বর্তমানে দেশের একজন সফল মাছ চাষী । তার খামারে বর্তমানে ১৫ জন লোকের কর্মসংস্থান হয়ছে । শুস্ক মৌসুমে ৬ মাস আরো ২০ জন লোক কাজ করেন । ২ ভাই ৩ বোন আর বাবা মা নিয়ে সোহেল বেপারীর পরিবারে আয়ের উৎস্য এই মৎস্য চাষ । তিনি জানান, গেল বছর তিনি ২ কোটি ৪৫ লাখ টাকার মাছ বিক্রি করেছেন । যার থেকে তিনি লাভ করেছেন ২০ লাখ ৫০ হাজার টাকা । এরই মাঝে নানান কারণে তার খামারের প্রায় ৩০ লাখ টাকা মাছ নষ্ট হয়েছে । না হলে লাভের অংশ আরো বেশি হতো বলে তিনি জানান ।
মাছ ধরা শুরু হলে প্রতিদিন এই অঞ্চলের পাইকাররা নিজেরাই এসে খামারের পাড় থেকে মাছ নিয়ে যায় । সোহেল বেপারী জানান, আশ পাশের বাজারের চাহিদা মিঠিয়ে রাজধানী ঢাকাতেও তার খামারের মাছ বিক্রির জন্য নিয়ে যায় পাইকাররা ।
এদিকে সোহেল বেপারীর এমন সাফল্যে খুশি তার পরিবার ও এলাকাবাসী । আর বিশিষ্টজনরা বলছেন যে সকল যুবক কর্মসংস্থানের অভাবে হতাশায় ভুগছেন তাদের অন্তত একবার সোহেল বেপারীর মৎস্য প্রকল্প ঘুরে আসা উচিৎ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...