আজ ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জুন, ২০২৪ ইং

জুম বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

গাইবান্ধায় প্রতিনিধি: গাইবান্ধায় করোনা প্রার্দুভাবে কর্মহীন হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে সুবিধা বঞ্চিত ও পথ শিশুদের নিয়ে কাজ করা এভারগ্রীণ জুম বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন। আজ ১৬ ই মে শনিবার জুম বাংলাদেশ-এর পক্ষ থেকে জুম বাংলাদেশ স্কুল গাইবান্ধা শাখারা সুবিধাবঞ্চিত ছিন্নমূল হতদরিদ্র অভিভাবকদের মাঝে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে ১০ দিনের খাবার সমগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

লায়ন্স ক্লাব অব ঢাকা রোজ গার্ডেন এর অর্থায়নে এ খাবার সামগ্রী দেওয়া হয়। খাবার সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল ১০ কেজি, আলু ২ কেজি, ডাল ১ কেজি, লবণ ১ কেজি, তেল ১ লিটার, চিনি হাফ কেজি, মুড়ি হাফ কেজি, সেমাই হাফ কেজি, মিষ্টি কুমড়া, চাল কুমড়া, শাক ও সবজিসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য।

এ সময় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন গাইবান্ধা জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, গাইবান্ধা জুম বাংলাদেশ এর সমন্বয়ক মোঃ মেহেদী হাসান, নাজিউর রহমান কাজল, শিমুল শিপলু, নাবিলা ইয়াসমিন মিম, আসিফ রায়হান, তাফহীম, অন্তর, রবিউল আলম রুবেলসহ স্কুলের শিক্ষকগণ।

খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কালে গাইবান্ধা জেলা পুলিশ সুপার মোঃ তৌহিদুল ইসলাম বলেন, জুম বাংলাদেশ এর ব্যতিক্রম আয়োজন করছে তারা সু-শৃঙ্খলভাবে সুবিধাঞ্চিত ও ছিন্নমূল শিশুদের খাদ্য প্রদান করে। সবসময় জুম বাংলাদেশ এর পাশে থাকার জন্য সহযোগিতা অব্যহত থাকবে।

ফাউন্ডেশনটির প্রতিষ্ঠাতা এসটি শাহীন বলেন, জুম বাংলাদেশ দেশের যেকোনো দুর্যোগে অসহায় মানুষের পাশে ছিলো এবং থাকবে। করোনার কারণে যে সমস্ত মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ে অসহায় জীবন যাপন করছে তাদেরকে আমরা ১০ দিনের খাবার সামগ্রী দিচ্ছি। যেহেতু সামনে ঈদ, তাই ঈদে এই মানুষগুলো যাতে না খেয়ে থাকে। আমরা আমাদের কর্মকান্ড অব্যহত রাখব। জুম বাংলাদেশ যেহেতু ছিন্নমূল শিশুদের নিয়ে কাজ করে তাই তাদের পরিবারের প্রতি আমাদের দায়বদ্ধতা আছে বলে মনে করি।

চিফ কো-অডিনেটর রাজিব সরকার বলেন, জুম বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আমরা আমাদের ৫টি শাখার শিক্ষার্থীদের মাঝে এ খাবার সমগ্রী বিতরণ করছি। মানুষ হিসেবে আমাদের সবার দায়িত্ব এই সময় মানুষের পাশে দাঁড়ানো।

সমন্বয়ক মোঃ মেহেদী হাসান বলেন, জুম বাংলাদেশ যেকোন বিপদকালীন সময়ে বিভিন্ন র্কাযক্রমে অংশগ্রহন করে। বিগত সময়েও সদস্যরা জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে বন্যায় ও চলতি করনো প্রতিরোধে সামাজিক সচেতনতা থেকে শুরু করে হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ বিভিন্ন সুরক্ষা সমগ্রী বিতরণ করার পাশাপাশি খাবার সমাগ্রী বিতরন করে আসছে।

এদিকে জানা গেছে জুম বাংলাদেশ করোনা প্রদূর্ভাবের শুরু থেকে নানা মুখী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।কর্তৃপক্ষ জানায় করোনার শুরুতেই তিন হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ বিভিন্ন সুরক্ষা সমগ্রী বিতরণ করার পাশাপাশি এক হাজার লোককে ৫ দিনের খাবার সমাগ্রী দিয়েছিল। বর্তমানে নতুন করে ২০০ পরিবারকে ১০ দিনের খাবার দেওয়াসহ প্রতিদিন ১০০ লোকের ইফতার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। জুম বাংলাদেশ স্কুল ঢাকায় ৪টি ও গাইবান্ধা ১টি স্কুলে ৩৫০ জন সুবিধাবঞ্চিত, ছিন্নমূল ও পথশিশুরা লেখাপড়া করছে। তাদের বিনামূল্যে পাঠদানের পাশাপাশি একবেলার খাবার ও শিক্ষা উপকরন দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...