আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং

টাকার জন্য ক্রিকেটাররা খেলা বন্ধ করে দেবে, এটা ভাবতেই পাচ্ছি না- পাপন

গতকাল সোমবার ১১ দফা দাবি সংবাদ মাধ্যমের বরাদ দিয়ে ক্রিকেট বোর্ডকে জানায় ক্রিকেটাররা। আর তারই পরিপ্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) বিসিবি জরুরি সভা ডাকে। দুপুর দুইটা থেকে বিসিবি সভাপতি এবং কর্মকর্তারা আলোচনায় বসেন। এরপর দুপুর ৩টা ১৫ মিনিটে সাংবাদিক সম্মেলন করেন নাজমুল হাসান পাপন। সেখানে শুরুতেই ক্রিকেটারদের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

টাকার জন্য ক্রিকেটাররা খেলা বন্ধ করে দেবে, এটা ভাবতে পাচ্ছি না বলে মন্তব্য করেছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ওরা চেয়েছে আমি দেই নাই এটা হয়নি। শ্রীলঙ্কা সফর থেকে আসার পরেই সাকিব-তামিম আমাকে বলেছে, ভাই বেতন বাড়ায় দেন। আমি বললাম, তোমাদের বেতন এখন কত? ওরা বললো ৫০ হাজার। আমি পরে বললাম ঠিক আছে চার লাখ করে দিলাম। কী পরিমান সুযোগ-সুবিধা ওদের দিচ্ছি, ২৪ কোটি টাকা শুধু ওদের বোনাস দিয়েছি।

আকস্মিকভাবে এমন ধর্মঘট ডাকার বিষয়টিতে ষড়যন্ত্র দেখছেন বিসিবি প্রধান, ‘খেলোয়াড়রা আমাদের না জানিয়ে বিষয়গুলো সাংবাদিকদের জানিয়েছে, এতে আমি বিস্মিত। সব মিলিয়ে আমি ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি।’ ওদের সুবিধা বাড়ানো ছাড়া তো কিছু করিনি। কিন্তু টকশো মিডিয়ার খবরে মনে হয়েছে ওদের আমরা শেষ করে ফেলেছি। এতো সম্পর্ক থাকার পরেও আমাদের কিছু বললো না কেন। এটা পূর্বপরিকল্পিত।’

তিনি আরও জানান, ওরা একটা দাবি করেছে গ্রাউন্ডসম্যান-আম্পায়ারদের বেতন বাড়ানোর। আমরা তো কদিন আগেই আম্পায়ারদের বেতন বাড়িয়েছি। তারপরও কী করে ওরা এই দাবি করে? ওরা এমন ভাব দেখিয়েছে যে আমরা কিছুই করছি না। এত কিছু করার পরও…। কি করিনি? ওদের পারিবারিক সমস্যার আমি সমাধান করেছি। কারও খালার সমস্যা, কারও জমি উদ্ধার কি কাজে আমি যাইনি। বিদেশ থেকে ফোনের পর ফোন করে তাদের সমস্যা সমাধান করেছি। পুলিশ একে ধরে নিয়ে গেছে, ওকে ধরে নিয়ে গেছে, আমি সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করেছি।

উল্লেখ্য, বিসিবি’র নানা বিতর্কিত সিদ্ধান্ত ও দেশের ক্রিকেটের চলমান অসংগতিতে অসন্তোষ প্রকাশ করে সোমবার (২১ অক্টোবর) সাকিব-তামিম-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট ডেকেছেন। তাদের ১১ দফা দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেটে খেলবেন না বলে তারা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

এতে করে হুমকির মুখে পড়েছে চলমান জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল)। এছাড়া আগামী মাসে ভারতে আসন্ন সফরও হুমকির মুখে পড়ে।

ক্রিকেটারদের মুখপাত্র হয়ে বাংলাদেশের টেস্ট ও টি–টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব জানান, ‘দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত কোনো ক্রিকেটীয় কার্যক্রমে অংশ নেবে না ক্রিকেটাররা।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...