আজ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জুন, ২০২২ ইং

কঠোর অবস্থানের পরও অপরাধে জড়াচ্ছে ছাত্রলীগ নেতারা

 

 ক্ষমতার অপব্যবহার, অস্ত্র, মাদক, চাঁদাবাজি এমনকি ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে। এসব ঘটনায় দল ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারও করা করা হয়েছে অনেককে। তারপরও থেমে নেই অপরাধ প্রবণতা।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় :
শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে জালিয়াতি চেষ্টার ঘটনায় পৃথক ৪টি মামলা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শক। রোববার রাতে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা।

তিনি জানান, আটক পাঁচজনের বিরুদ্ধে চার থানায় মামলা হয়েছে। এদের তিনজন কিশোর হওয়ায় তাদেরকে কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া পরীক্ষায় মূল জালিয়াত চক্রকে ধরতে তাদের বিরুদ্ধে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে। আসামিদের মধ্যে মাহমুদুল হাসান ও সাদ মো. সাহেল বগুড়া জেলার সদর এবং ইব্রাহিম খলিল জীবন ও আহসান আলী একই জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলা থেকে এসেছে বলে জানা যায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় :
২৩ অক্টোবর অস্ত্র ও মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের চার ছাত্রলীগ নেতাকে অস্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে আবাসিক হল ও হোস্টেল প্রশাসনের এক মতবিনিময় সভা হয়। সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী জানিয়েছেন।

বহিষ্কৃতরা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা বহিষ্কৃতরা হল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক উপ-ক্রীড়া সম্পাদক হাসিবুর রহমান তুষার, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক উপ-অর্থ সম্পাদক আবু বক্কর আলিফ, মুহসীন হল ছাত্রলীগের ধর্ম বিষয়ক উপ-সম্পাদক ইফতেখার ইসলাম তুষার ও শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ইমরান ফরহাদ ইমু। অভিযুক্তরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের মহসিন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। তাদেরকে এর আগে হল থেকেও করা হয়েছে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় :
২৩ অক্টোবর এক দোকানির কাছ থেকে চার হাজার টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে। তবে দুই নেতার দাবি, চাঁদা নয়, চা-বিড়ির খরচ নেয়া হয়েছে। ভুক্তভোগী বাবু বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া হলের সামনের খাবারের দোকানদার। খাবারে ইটের খোয়া পাওয়ার অভিযোগ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে না জানানোর শর্তে এ টাকা নেন দুই ছাত্রলীগ নেতা। বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ জিয়া হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্তরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সুরঞ্জিত প্রসাদ বৃত্ত এবং ছাত্রলীগ কার্যনির্বাহী সদস্য নাইমুর রহমান দূর্জয়। তারা রাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর অনুসারী।
ক্যাম্পাস সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে বাবুর দোকানে খাবারের প্লেটে ইটের খোয়া পায় ছাত্রলীগ নেতা দূর্জয়ের পরিচিত এক ভর্তিচ্ছু ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী সৈকত। খাবারে ইটের খোয়া পাওয়ার বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমানের দপ্তরে অভিযোগ দেয়ার হুমকি দিয়ে দূর্জয়কে ডেকে আনেন তারা।
তখন দূর্জয় ফোন করে ডেকে নিয়ে আসেন ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি বৃত্তকে। বৃত্ত এসে নানাভাবে হুমকি দিতে থাকেন দোকানি বাবুকে। পরে প্রক্টরকে না জানানোর শর্তে তাদেরকে ১৫০০ টাকা দিতে রাজি হন বাবু।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীকে র‌্যাগিং দেয়ার প্রতিবাদ করায় এক শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে আরেক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের সাদিক। অভিযুক্ত শিক্ষার্থী বাংলা বিভাগের মাসুম শিকদার। উভয়ের বাসা টাঙ্গাইল জেলায় এবং ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী।
ঘটনা সূত্রে জানা যায়, ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী আরিফ তালুকদারকে সঙ্গে নিয়ে ঘুরতে বের হয়েছিলেন সাদিক। শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে গেলে আরিফ আলাদা হয়ে পড়েন। সেই সময়েই মাসুম শিকদারের সঙ্গে দেখা হয় তার। প্রথমে তার পরিচয় জানতে চান। টাঙ্গাইল পরিচয় দেওয়ার পর তাকে নানাভাবে প্রশ্ন শুরু করেন মাসুম শিকদার। পরে হলের গেস্ট রুমে নিয়ে টাঙ্গাইলের এক ছাত্রলীগ নেতাকে চেনে কিনা এটা জানতে চান। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী আরিফ ওই ছাত্রলীগ নেতাকে চিনেন না বলে জানালে তুই তুকারি করে আলাপ শুরু করেন মাসুম। এর মধ্যেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন সাদিক।

সাদিকের ভাষ্য আরিফকে র‌্যাগ দেয়া হচ্ছে কিনা মাসুমের কাছে এমনটা জানতে চেয়েছিলেন তিনি এবং ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীকে র‌্যাগ দেয়া উচিত নয় এমন বলতেই তাকে কিল ঘুষি মারতে শুরু করেন। হাতে চাবির রিং দিয়ে আঘাতের এক পর্যায়ে চোখের কোণ ফেটে যায় সাদিকের। রক্তাক্ত করা হয় তাকে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত মাসুমের শাস্তির দাবি করেন তিনি। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই সাদিককে রক্তাক্ত অবস্থায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলে নিয়ে আসেন সহপাঠীরা। সেখানে ২টি সেলাই দেয়া হয়। এ বিষয়ে মাসুম শিকদার বলেন, সাদিক আমার খুব কাছের বন্ধু। আমরা মজা করি নব সময়। ওর সঙ্গে কিল ঘুষি এমন নিত্যদিন চলে। তবে আজকে একটু বেশি হয়ে গেছে। ওর চোখের কোণে কেটে যায়। পরে আমরা বিষয়টি মিমাংসা করে নিয়েছি।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় :
২১ অক্টোবর কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের একটি কক্ষে (৫০৬) মাদক সেবনরত অবস্থায় আটক দুই ছাত্রলীগ নেতাসহ অপর এক ছাত্রকে ‘শোকজ’ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরিয়াল বডি। প্রক্টর কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন স্বাক্ষরিত এক নোটিশে এ তথ্য জানানো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে সশরীরে উপস্থিত হয়ে ওই তিন শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শাও নোটিশের জবাব দেয়ার নির্দেশ হয়। তারা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উপ-সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক ও বাংলা বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী জসীম উদ্দিন বিজয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পরিসংখ্যান বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী সজীব কুমার কর এবং একই বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী খলিলুর রহমান শিবলু।
শোকজে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল প্রশাসন থেকে প্রেরিত জব্দকৃত মালামাল, প্রভোস্ট মো. জিয়া উদ্দিনের মাধ্যমে অগ্রায়ণকৃত পত্র পর্যালোচনা করে প্রক্টরিয়াল বডি প্রাথমিকভাবে মনে করে যে সংশ্লিষ্ট তিন শিক্ষার্থী মাদক গ্রহণ ও সরবরাহ করে হলের শৃঙ্খলা নষ্ট এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুণ করছে।

শোকজে আরও বলা হয়, সংশ্লিষ্ট ঘটনায় ওই তিন শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, তা আগামী ২২ অক্টোবর প্রক্টর অফিসে প্রক্টরিয়াল বডির সম্মুখে উপস্থিত হয়ে জানাতে হবে। অন্যথায় প্রক্টরিয়াল বডি সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীদের অপরাধী হিসেবে গণ্য করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত বিধি মোতাবেক পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করবে।

শোকজ প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে মাদক সেবনের ঘটনায় সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। প্রক্টরিয়াল বডি ওই শিক্ষার্থীদের বক্তব্য শুনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করবে। এদিকে এ ঘটনায় অভিযুক্ত বঙ্গবন্ধু হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সজীব কুমার করকে দল থেকে বহিষ্কার এবং বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উপ-সাহিত্য সম্পাদক জসীম উদ্দিন বিজয়কে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ।

১৮ অক্টোবর কুষ্টিয়ায় চাঁদাবাজি মামলার আসামী কুষ্টিয়া সদর উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আনিচুর রহমান আনিচকে গ্রেপ্তার করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানা পুলিশ। সদর উপজেলার আব্দালপুর ইউনিয়নের হাসানবাগ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তারের বিয়ষটি নিশ্চিত করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর আরিফ।

১৫ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে যুব মহিলা লীগ নেত্রীর দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শরিফুর রহমান পারভেজকে (৪৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে েেসানারগাঁয়ের কাঁচপুর ইউনিয়নের গঙ্গাপুর বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন থানার ওসি কামরুল ফারুক।

২ অক্টোবর সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে মেয়েকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় আমিনুল ইসলাম নামের ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই ব্যক্তি মারা যান। দুপুরে উপজেলার পাটগ্রাম এলাকায় হামলার শিকার হন তিনি। পুলিশ অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে।

নিহত ব্যক্তির নাম আবদুর রউফ (৪৫)। গ্রেপ্তার হয়েছেন আমিনুল ইসলাম (২৮)। তিনি কাজিপুর পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। আমিনুলের দলীয় পরিচয় নিশ্চিত করেছেন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ছাত্রলীগের সাবেক নেতা একরামুল হক। একরামুল জানিয়েছেন, তিনি জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক (সদ্য সাবেক) থাকা অবস্থায় আমিনুলদের কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। ওই পৌর কমিটি এখনো বলবৎ আছে।

গঠনতন্ত্র পরিপন্থী কর্মকান্ড  দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে রংপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফসহ তিন নেতাকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় কমিটি।
বহিষ্কৃত অপর দুই নেতা হলো রংপুর মহানগর শাখার সহ-সভাপতি নয়ন মাহমুদ বিপ্লব ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম গতকাল রোববার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ভোলায় গৃহবধূকে দু’দফা গণধর্ষণের ঘটনায় মামলায় নজরুল ইসলাম নামে মনপুরার দক্ষিণ সাকুরিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভুক্তভোগী নারীর মেডিকেল পরীক্ষার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।গতকাল রোববার সকালে মনপুরা থানায় এ মামলা করেন ভুক্তভোগী নারী। এতে ছাত্রলীগের এক নেতাসহ ৬ জনকে আসামি করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...