আজ ৭ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে জুন, ২০২১ ইং

শীতে কাঁপছে ফুলছড়ি চরাঞ্চলের মানুষ

উত্তরঞ্চলে ধীরে ধীরে বাড়ছে শীতের তীব্রতা। ভোর থেকে বেশ ঠান্ডা হিমেল বাতাশ বয়ে যায়। বেলা গড়ালে কিছুটা তাপমাত্রা বাড়লেও আবার বিকেল হতেই কমতে শুরু করে তাপমাত্রা। রাতের বেলায় শীতের তীব্রতা বাড়ছে আরও দ্বিগুন ।

ব্রহ্মপুত্র নদ ঘেঁষা গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা চরাঞ্চলের মানুষের অবস্থা আরও করুণ। শীতে কষ্ট পাচ্ছেন দুঃস্থ, অসহায় ও নিম্ন আয়ের মানুষ গুলো। ধোঁয়ার মতো ঘন কুয়াশায় দিনের বেশির ভাগ সময় সূর্যর দেখাই মিলছে না। ফলে এই হাড় কাঁপানো তীব্র ঠান্ডা গৃহবন্ধি করে ফেলেছে গাইবান্ধা ফুলছড়ি চরাঞ্চলের অসহায় মানুষগুলোকে। শুধু মানুষ নয়, প্রাণীকুলও কাঁপছে শীতের দাপটে। তবে শীতের দাপটে সাধারণ মানুষের চেয়েও বেশি কাতর হয়ে পড়েছেন উপজেলার চরাঞ্চলসহ সাত ইউনিয়নের হতদরিদ্র-ছিন্নমূল ও খেটে খাওয়া মানুষরা।উপজেলা কালির বাজার গিয়ে দেখা গেছে, তুলা, কাপড়, সুই ও সুতা নিয়ে লেপ তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন ধুনকরা।

কিন্তু সাধ থাকলেও সার্ধ নেই গ্রাম ও চরাঞ্চলের অসহায় মানুষের। গরম কাপড়ের অভাবে এসব মানুষের ভোগান্তি চরম আকার ধারণ করেছে। সাময়িকভাবে শীত নিবারণে খড়কুটোর আগুনই যেন তাদের একমাত্র ভরসা। তবে রাতের বেলায় বৃষ্টির মতো পড়তে থাকা কুয়াশার সঙ্গে হিমেল বাতাসে তাদের কষ্ট আরও ভয়াবহ হয়ে উঠেছে। মানবেতর জীবনযাপন করছে এ ফুলছড়ি উপজেলার মানুষ। ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু রায়হান দোলন বলেন এখন পর্যন্ত সরকারি ভাবে শীতবস্ত্র কম্বল চার হাজার টি কম্বল অসহায় দরিদ্য মানুষের মাঝে বিতারন করা হয়েছে এবং শীত বস্ত্র কম্বল বিতারন চলমান রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...