আজ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

যক্ষার শীর্ষে ভারত

গণ উত্তরণ ডেক্স:  গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৮ সালে ভারতে নথিভুক্ত যক্ষ্মা রোগীর সংখ্যা ২৭ লক্ষ (২৬.৯)। পঞ্চম স্থানে রয়েছে পাকিস্তান। বিশ্বের নিরিখে, ৬ শতাংশ যক্ষ্মা আক্রান্ত পাকিস্তানে। বাংলাদেশ আছে সাতে (৬%)। তিনে রয়েছে ইন্দোনেশিয়া। আটে দক্ষিণ আফ্রিকা (৩ শতাংশ)। চারে আছে ফিলিপিন্স। ছয়ে আছে নাইজেরিয়া।হু-এর এই রিপোর্টে প্রকাশ, বিশ্বের মোট যক্ষ্মারোগীর দুই তৃতীয়াংশই রয়েছে উল্লিখিত আটটি দেশে। ২০১৭ সালে গোটা বিশ্বে ১৬ লক্ষ মানুষ যক্ষ্মায় মারা গিয়েছেন। ২০১৮-য় যদিও যক্ষ্মায় মৃত্যু কমে হয়েছে ১৫ লক্ষ। বিশ্বে মৃত্যুর নিরিখে প্রথম ১০-এ যে অসুখগুলি রয়েছে, তার মধ্যে যক্ষ্মা অন্যতম।

গোটা বিশ্বে প্রায় এক কোটি মানুষ যক্ষ্মায় ভুগছেন। বলছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাম্প্রতিক রিপোর্ট। যক্ষ্মা আক্রান্তের নিরিখে দেশ হিসেবে শীর্ষে ভারত। যদিও, অতীতের তুলনায় ভারত যক্ষ্মা রোগী অনেকটাই কমছে। তবে, শীর্ষস্থান থেকে সরে আসতে পারেনি। অদূর ভবিষ্যতে সে সম্ভাবনাও নেই। কারণ, দ্বিতীয় স্থানে থাকা চীনে যক্ষ্মা আক্রান্ত মোটে ৯ শতাংশ। যেখানে দুনিয়ার মোট যক্ষ্মা আক্রান্ত রোগীর ২৭ শতাংশের বাস ভারতে।

হু-র রিপোর্টে ভারতের জন্য স্বস্তির খবর একটাই, বিগতে এক বছরে যক্ষ্মা আক্রান্তের হার কমেছে। ২০১৭ সালে যেখানে নথিভুক্ত যক্ষ্মারোগীর সংখ্যা ছিল ২৭.৪ লক্ষ, সেখানে ২০১৮ সালে তা নেমে এসেছে ২৬.৯ লক্ষে। ভারতে বিজেটি সরকারের লক্ষ্য, ২০২৫ সালের মধ্যে ভারতকে যক্ষ্মামুক্ত করা। শুধু টার্গেট স্থির করাই নয়, শেষ তিন বছরে যক্ষ্মার চিকিত্‍‌সায় বরাদ্দও বিপুলাংশে বাড়ানো হয়েছে। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে যেখানে ৬৪০ কোটি টাকা বরাদ্দ ছিল, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে তা বেড়ে হয়েছে ২,৮৪০ কোটি টাকা।

সুত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...