আজ ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ইং

সন্ধ্যার পর পূজামণ্ডপ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত

ডেক্স নিউজ : করোনার মহামারিতে ভাইরাসটির বিস্তার রোধে এবারের দুর্গাপূজায় সন্ধ্যার পর পূজার মন্দির বা মণ্ডপ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ। এর ফলে সন্ধ্যার পর পূজা মণ্ডপে ঘুরা বা আরতি করতে পারবে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। বুধবার (২১ অক্টোবর) বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত ও সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জী এক বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে তারা বলেন, ১৯ অক্টোবর মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন জনসমাগমে কেউ যেন মাস্ক ছাড়া বের না হয়। প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা যাবে মর্মেও নির্দেশ দেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার প্রকারান্তরে করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ সম্পর্কে পুনরায় জনগণকে সতর্ক করে দিয়েছেন। দেশের চিকিৎসকরাও বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ সম্পর্কে জনগণকে বারবার সতর্ক করছেন।’

‘বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বশরীরে পূজায় অংশগ্রহণ করে নিজের ও পরিবারের সদস্যদের করোনার কাছে আত্মসমর্পণ করে জীবনকে ঝুঁকির মুখে ফেলবেন নাকি এবারের পূজায় অংশগ্রহণ করা থেকে বিরত থাকবেন, তা আপনাকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমাদের সবাইকে স্মরণ রাখতে হবে যে, দুর্গাপূজা পাঁচদিনব্যাপী অনুষ্ঠান। সবার অংশগ্রহণে করোনার বিস্তারের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। তাই এর দায় নিজের ঘাড়ে নেয়া থেকে দূরে থাকুন। সন্ধ্যারতির পর সর্বসাধারণের জন্য মন্দির/মণ্ডপ বন্ধ রাখুন। মা সর্বত্র বিরাজমান। বাড়িতে থেকে আপনার প্রণাম মা নিশ্চয়ই গ্রহণ করবেন। তিনি বঞ্চিত করবেন না তার আশীর্বাদ থেকে।’- বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়। সবস্তরের কমিটির নেতাদের তাদের এ বার্তা দ্রুত গ্রাম পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার অনুরোধও জানায় পূজা উদযাপন পরিষদ।

এবার সারাদেশে ৩০ হাজার ২১৩টি মণ্ডপে পূজা হবে। গত বছর এই সংখ্যা ছিলো ৩১ হাজার ৩৯৮টি। আগামী ২২ অক্টোবর ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে এবার দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। ২৩ অক্টোবর সপ্তমী, ২৪ অক্টোবর অষ্টমী, ২৫ অক্টোবর নবমী শেষে ২৬ অক্টোবর (সোমবার) দশমী তিথিতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে দুর্গাপূজার অনুষ্ঠান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...