আজ ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩১শে জানুয়ারি, ২০২৩ ইং

‍বখাটে দেবরের হাতে নারী উদ্যোক্তা তাসলিমা নিপা লাঞ্ছিত

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :প্রধানমন্ত্রীর দেয়া জাতীয় যুব পদকে ভুষিত ভালুকার সফল নারী উদ্যোক্তা তাসলিমা আক্তার নিপা তার বখাটে দেবর খলিলুর রহমান রিয়াদ (৩৫) ও তার সাঙ্গ-পাঙ্গদের হামলায় আহত ও শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

রবিবার ১০ (অক্টোবর) বিকালে ভালুকা পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের কাইয়ার মসজিদ এলাকা থেকে আহত অবস্থায় ভালুকার সফল ওই নারী উদ্যোক্তাকে তার স্বামী উদ্ধার করে ভালুকা সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ ব্যাপারে ভালুকা মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ওই দিন রাতে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি তাসলিমা আক্তার নিপা (৩৮) সাংবাদিকদের জানায়, রিয়াদ একজন বখাটে প্রকৃতির ছেলে। কোন কাজকর্ম না করে, ঘুরে-ফিরে খায় আর তার নিত্য দিনের খরচ যোগান দিতে হয় ভাই কিংবা ভাবীদের। দীর্ঘদিন ধরেই নানা অজুহাতে টাকার প্রয়োজন দেখিয়ে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি করে আসছিল। আনুমানিক ৪/৫ বছর আগে তার শ্বশুর মারা যাওয়ার পর থেকে শ্বশুরের মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ও পেনশনের টাকাসহ গ্রামের বাড়ীর জমির ফসল বাকী দুই ভাইকে না দিয়ে সে একাই ভোগ করে আসছে।

অথচ সবাই পৃথক খানায় সংসার চালালেও রিয়াদের নিজের নামের হোল্ডিং এর পৌর করের টাকা তাসলিমা ও তার স্বামী আবু বক্কর সিদ্দিককে দেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে থাকে, তাসলিমা সেই টাকা না দেয়ায় রবিবার দুপুরে রিয়াদ ও তার সহযোগিরা তাকে নির্মম ভাবে মারধোর ও লাঞ্ছিত করে আহতাবস্থায় বাড়ী থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেয়।

পরে তাসলিমার স্বামী কর্মস্থল থেকে ফিরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করায়। তাসলিমা আরও জানায় সে একজন সফল নারী উদ্যোক্তা, নারীদের কর্মসংস্থানে কাজ করেন, একারনে তার বখাটে দেবর সুযোগ পেলেই তার চরিত্র নিয়ে বিভিন্ন মহলে বাজে মন্তব্য করে আসছে যা তার জন্য চরম মানহানিকর। সেই সাথে নারী উদ্যোক্তা হিসেবে কাজ করতে গিয়ে সামাজিক ভাবে বাধা বিপত্তি ও প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাকে।

উল্লেখিত ওই বখাটে যুবক রিয়াদ সম্প্রতি নিজে সাংবাদিক না হয়েও ভালুকা উপজেলা প্রেসক্লাবের নামে একটি ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে নিজেকে সভাপতি দাবী করে ভালুকার সিনিয়র সাংবাদিকদের নিয়ে নানা ধরনের আপত্তিকর মন্তব্য করে আসছে। এ ব্যাপারে ভালুকা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় যা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার তদন্তাধীন।

অভিযুক্ত রিয়াদ প্রকৃত অর্থেই কোন মিডিয়ার সাংবাদিক হিসেবে কর্মরত এবং উপরোল্লিখিত নারী উদ্যোক্তার উপর হামলার সত্যতা সম্পর্কে জানতে খলিলুর রহমান রিয়াদের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও সে প্রতিবেদকের ফোন রিসিভ করেন নি।

এ বিষয়ে ভালুকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) আবদুল্লাহ আল বাকিউল বারী প্রতিবেদককে জানান, সফল ওই নারী উদ্যোক্তার উপরে হামলার বিষয়টি ইতিমধ্যেই উনি অবগত হয়েছেন এবং এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ দায়েরের পর প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...