আজ ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ ইং

দলকে ভালোবেসে নিরবে নিভৃতে কাঁদছেন ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মোতাহার

 আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকায় টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, ক্যাসিনো ব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে কোটি টাকা বনে গেছেন অনেক নেতাই। এমনকি দলের যারা অনুপ্রেশকারী তাদের দাপটে ত্যাগি নেতারাও কোনঠাসা হয়ে পড়েছেন। তবে ব্যাতিক্রম রয়েছেন অনেকে। কেউ কেউ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও দলকে ভালোবেসে নিরবে নিভৃতে কাঁদছেন। এ কান্নার শোনার যেনো কেউ নেই। এমনই একজন মোতাহার হোসেন রানা। ছাত্রলীগের এই সাবেক নেতার একটি ছবি এখন ফেসবুকে ভাইরাল।

মোতাহার হোসেন রানাকে নিয়ে বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের কার্যনির্বাহী সদস্য সেবিকা রানী তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন, হায়রে ভাগ্য! অনেক পুরাতন শার্ট, টুপি পরিহিত ও আশাহীন চোখে তাকিয়ে থাকা জরাজীর্ণ ছবির এই মানুষটির নাম-মোতাহার হোসেন রানা। (সাবেক সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি। সাবেক সভাপতি, কবি জসিম উদ্দিন হল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও সাবেক সভাপতি, মিরশ্বরাই থানা ছাত্রলীগ)। ৯০-এ স্বৈরাচার বিরোধী ছাত্র আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের প্রথম কাতারের নেতা ছিলেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের এক সভায় তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনে ৫ মিনিট বক্তব্য দিয়েছিলেন রানা। সভামঞ্চে তার বক্তব্য শুনে শেখ হাসিনা খুশী হয়ে তার নাম, ঠিকানা ডায়েরীতে টুকে নিয়েছিলেন সেদিন। ১৬ই নভেম্বর মিরশ্বরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ছিলো। উপস্থিত দর্শকের সারিতে চেয়ারে এমন অসহায় হয়ে বসেছিলেন এক সময়ের মাঠ কাপানো সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোতাহার হোসেন রানা ভাই। কিন্তু সভামঞ্চে তারই হাতে গড়া কর্মী, সহযোদ্ধা অনেকে থাকলেও কেউ তার খবর রাখেনি।
রাজনীতিতে অর্থ-বিত্ত না থাকলে দাম নাই। টাকা, পয়সা না থাকলে টিকে থাকা যায় না। সংগ্রাম আর ত্যাগের এটাই সত্য। জয় হোক রানা ভাইয়ের মতো ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সারা বাংলার সকল মুজিব প্রেমী কর্মীদের। জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দীর্ঘজীবি হোক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...