আজ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

ভুয়া স্বাক্ষরে ভাতা উত্তোলন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ি উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার শফিকুল ইসলাম কর্তৃক তালুকজামিরা গ্রামের জনৈক দুস্থ মহিলার নামে বয়স্ক/বিধবা ভাতার তালিকা ভুক্ত করে দীর্ঘ ২ বছর থেকে ভুয়া স্বাক্ষরের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করে আত্বসাতের চাঞ্চল্যকর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে পলাশবাড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করা হয়েছে।

উক্ত ৯নং হরিনাথপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডস্থ তালুকজামিরা গ্রামের মৃত. খোকা ব্যাপারীর পুত্র তৈয়ব আলী কর্তৃক গত ৩০ এপ্রিল/২০২০ ইং বৃহস্পতিবার পলাশবাড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর দাখিলকৃত অভিযোগে জানা যায়, উক্ত উপজেলার ৯নং হরিনাথপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার মোঃ শফিকুল ইসলাম অত্র ওয়ার্ডের বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে সরকারী বরাদ্দকৃত কার্ড করে দেওয়ার কথা বলে প্রতারনার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১০/০৬/২০১৮ ইং তার মা ‘তারা মাই’ এর কাছ থেকে বয়স্ক ভাতা করে দেবে বলে আইডি কার্ড নিয়ে যায়। আইডি কার্ড নিয়ে যাওয়া অবধি তার মা উল্লেখিত মেম্বারের বাড়িতে দীর্ঘদিন যাবত ঘোরাফেরা করা সর্তেও তার নামে বরাদ্দকৃত বয়স্ক ভাতার কার্ড দেয়নি। কিন্তু গত কয়েক দিন আগে তৈয়ব আলী লোক মারফত জানতে পারেন- তার মায়ের নামে একটা বয়স্ক ভাতার কার্ড প্রস্তুত হয়েছে। পরে উক্ত মেম্বারকে বিভিন্ন ভাবে চাপ প্রয়োগ করলে দূর্নীতিবাজ মেম্বার গত ২৮/০৪/২০২০ইং তারিখে প্রতিবেশী মোখলেছুর রহমানের কাছে দুইটি পাতা ছেড়া অবস্থায় কার্ডটি তার মাকে দিতে বলে চলে যায়। যার কার্ড নং ৮০০৪, হিসাব নং ৭৯০/৭১২। এই বইতে জুলাই ২০১৮ হতে ভাতার টাকা প্রদানের নির্দেশ রয়েছে।

সুত্র জানায়, যেহেতু জুলাই/১৮ হতে ভাতা প্রদানের নির্দেশনা রয়েছে সেহেতু উক্ত তৈয়ব আলীর মা তারা মাই অদ্যাবধি কোন প্রকার টাকা পায়নি। বইটি নিয়ে ব্যাংকে গেলে জানা যায়, দূর্নীতিবাজ মেম্বার শফিকুল ইসলাম তার সবকটি কোঠার টাকা উত্তোলন করে আত্নসাত করেছে ।

এ ব্যাপারে উক্ত অভিযুক্ত ইউপি মেম্বার শফিকুল ইসলাম এর মতামত জানার জন্য তার ব্যবহৃত মোবাইল নং ০১৭৩৯-৩৮২৮১০ এ যোগাযোগ করা হলে মোবাইল বন্ধ থাকায় তার মতামত জানা সম্ভব হয়নি।

এমতাবস্থায় উল্লেখিত দূর্নীতিবাজ ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে আইনানূগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা অতিব জরুরী বলে এলাকার সচেতন জনগণ মতামত ব্যক্ত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...