আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জুন, ২০২১ ইং

সাংসদের দ্বিতীয় স্ত্রীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী ও তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী তেরখাদিয়া এলাকার আয়েশা আক্তার লিজার বিরুদ্ধে কোটি টাকা চাঁদা দাবি ও তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করেছেন রাজশাহী ৪ আসনের সাংসদ এনামুল হকের একান্ত সহকারি ও বাগমারা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ। বাগমারা থানার মামলা নম্বর ৬, তারিখ-৫জুন, ২০২০।

আয়েশা আক্তার লিজা নিজেকে সাংসদ এনামুল হকের দ্বিতীয় স্ত্রী দাবী করে ফেসবুকে তাদের ছবি প্রকাশ করে আসছিলো।

বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, গত শুক্রবার দিবাগত রাত ১২ টার পর সাংসদ এনামুল হকের পক্ষে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে ও চাঁদা দাবির অভিযোগ এনে মামলাটি দায়ের করেছেন তার একান্ত সহকারি আসাদুজ্জামান আসাদ।

এতে একক আসামী করা হয়েছে এনামুল হকের দ্বিতীয় স্ত্রী আয়েশা আক্তার লিজাকে।

মামলায় বলা হয়েছে, আয়েশা আক্তার লিজাকে তালাক দেয়ার পর সে তার স্বামী সাংসদ এনামুল হকের কাছে নিজের ব্যাংক লোনের এক কোটি টাকা পরিশোধের জন্য চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দেয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি দিয়ে সাংসদ এনামুল হকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে সুনাম ক্ষুন্ন করেছেন। পুলিশ আসামী লিজাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

মামলা প্রসঙ্গে আয়েশা আক্তার লিজা বলেন, ‘আমাকে পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার এবং মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হচ্ছিলো। তার অংশ হিসেবেই আমার নামে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আইনগত আমি এখনো সাংসদ এনামুল হকের বৈধ স্ত্রী। আমাকে তালাকের প্রথম নোটিশ দেয়া হয়েছে বলে শুনেছি। এখনো নোটিশ হাতে পাইনি। পরপর তিনটি নোটিশ তিনমাসে আসার পর তালাক চুড়ান্ত হয়। আমাকে তালাক দেয়ার বিষয়টি শুনতে পেয়ে আমি ন্যায় বিচার চেয়ে আমি আমার স্বামীর সঙ্গে ফেসবুকে ছবি দিয়েছি।

যেহুতু আমরা বৈধ স্বামী স্ত্রী। এতে তার একার পক্ষে মান সম্মান নষ্ট হবার কথা নয়।
লিজা বলেন, দীর্ঘ আট বছর আমার সঙ্গে সে ঘর সংসার করেছে। এতো বছর পর যখন স্বামীর স্বীকৃতি চাইলাম, বাচ্চা চাইলাম তখন আমাকে তালাক দেয়া হয়। আমার সঙ্গে নির্মম আচরণ, মানুষিক নির্যাতন, আমার বাচ্চা নষ্ট করা হয়। এসব বিষয় জনসম্মুখে আনার পরই এখন মামলা দেয়া হলো।

এর আগে সাংসদ এনামুল হক লিজাকে দ্বিতীয় বিয়ের কথা স্বীকার এবং তাকে তালাক দেয়া কথা গণমাধ্যমে জানিয়েছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...